Saturday, January 22, 2022


কুকুরকে ট্রাম্পের ‘ধন্যবাদ’! লাদেনের পথেই সলিল সমাধি বাগদাদির

By বাফেলো বাংলা , in Blog , at নভেম্বর 27, 2019

বাফেলোবাংলা ডেস্ক: লাদেনের লাশের পথ ধরেই সলিল ধমাধি হল আবু বকর আল-বাগদাদির। মার্কিন সেনাবাহি- নীর অভিযানে নিহত জঙ্গি গোষ্ঠী আইএস প্রধান আবু বকর আল-বাগদাদির লাশ সমুদ্রের পানিতে ফেলে দেয়া হয়েছে বলে ২৮ অক্টোবর, সোমবার গণমাধ্যমে খবর বেরিয়েছে।
যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে এবিসি নিউজ বলছে,সিরিয়ার উত্তর পশ্চিমাঞ্চলে শনিবার রাতে মাকির্ন কমান্ডো বাহিনীর অভিযানে বাগদাদি আত্মহত্যা করেছে। তার লাশ সমুদ্রে
ফেলে দেয়া হয়েছে।
এর আগে ২০১১ সালে পাকিস্তানে মৃত আল-কায়েদা নেতা ওসামা বিন লাদেনের লাশ সমুদ্রের পানিতে ফেলে দিয়েছিল মার্কিন সেনারা। বাগদাদির দাফনের বিষয়ে বিস্তারিত না উল্লেখ করে সূত্রটি শুধু জানিয়েছে, লাদেনের মতো করেই তার লাশ সমাহিত করা হয়েছে।
জয়েন্ট চিফস অফ স্টাফের চেয়ারম্যান জেনারেল মার্ক মিলি বলেন, ‘তার দেহাবশেষের নিষ্পত্তি করা হয়েছে, এবং সেটি যথাযথভাবে পরিচালিত হয়েছে ও সম্পূর্ণ হয়েছে।’
মিলি বলেন, ‘মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের আদর্শ সামরিক পদ্ধতির ভিত্তিতে এবং সশস্ত্র সংঘাতের আইন অনুসারে তার দাফন হয়েছে।’
জঙ্গি গোষ্ঠী আইএস এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান আল-বাগদাদি, যাকে অনেকদিন ধরেই খুঁজছিল আমেরিকা।
সংবাদমাধ্যমের খবরে বলা হয়, তার দেহ শনাক্তকরণের জন্য লাশটি ঘটনাস্থল থেকে নিয়ে আসা হয় এবং ডিএনএ পরীক্ষার পরে দেহটি যে বাগদাদিরই তা নিশ্চিত করা হয়। এরপরেই আবু বকর আল- বাগদাদির দেহের নিষ্পত্তি করা হয়।
ইউএনবি।

যে কুকুরটি লেলিয়ে দেয়া হয়েছিল বাগদাদির ওপর মার্কিন সেনাবাহিনীর হামলায় শনিবার সিরিয়ায় নিহত হয়েছে ইসলামিক স্টেট নামের উগ্রবাদী সংগঠনের প্রধান আবু বকর আল বাগদাদি। মার্কিন সেনার সেই অপারেশনে অংশ নিয়েছিল একটি ককরু । বাগদাদিকে সডঙ্গের দিকে তাড়িয়ে নিয়ে যাওয়ার সময় ওই কুকুরের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা ছিল। আইএস প্রধানকে হত্যায় ওই কুকুরের ভূমিকাকে ‘গ্রেট জব’-ধন্যবাদ দিয়ে মঙ্গলবার তার ছবি, নিজের টুইটার হ্যান্ডল থেকে প্রকাশ করলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট
বাগদাদির মৃত্যুর খবর রোববার বিশ্বকে জানানোর সময়ই ট্রা ম্প বলেছিলেন, যে সডঙ্গে বাগদাদি আত্মঘাতী বিস্ফোরণ করে নিজেকে উড়িয়ে দেন, সেখানে তাকে তাডা করেছিল দক্ষ একটি ককরু । এ দিন বিশের¦ কাছে সেই ককুে রর সঙ্গেই পরিচয় করিয়ে দিলেন তিনি। যদিও কুকুরটির নাম ও তার সম্পর্কে অন্যান্য তথ্য প্রকাশ করেননি। কুকুরের ভূমিকার প্রশংসা করেছেন ইউএস জয়েন্ট চিফ অব স্টাফ মার্ক মিলে। তিনি ওই ককুে রর নাম না বললেও, তার ভূি মকার পশ্রংসা করেছেন। বাগদাদিকে তাডা করতে গিয়ে চোট পাওয়া ওই সারমেয়র ব্যাপারে তিনি বলেছেন, ‘‘হাল্কা চোট পেয়েছিল ও। চিকিৎসা চলছে। এখন সে সুস্থ। কিছুদিন পরই আবার কাজে যোগ দেবে।’’- সূত্র : আনন্দবাজার পত্রিকা

যেভাবে বাগদাদিকে খুঁজে পায় যুক্তরাষ্ট্র

মার্কিন অভিযানে নিহত হয়েছেন চরমপন্থী গোষ্ঠি আইএসের প্রধান আবু বকর আল বাগদাদি। বেশ কয়েক বছর ধরে তার অবস্থান চিহ্নিত করার চেষ্টা করে আসছিল কয়েকটি
দেশের গোয়েন্দারা। পরে বাগদাদির শীর্ষ সহযোগীদের কাছে পাওয়া তথ্যেই তার অবস্থান চিহ্নিত করা গেছে বলে জানিয়েছেন ইরাকি গোয়েন্দারা। দই ইরাকি নিরাপত্তা কর্মকর্তার
বরাত দিয়ে এক রিপোর্টে জানিয়েছে রয়টার্স।
২০১৮ সালের শুরুতেইরাকি গোয়েন্দারা প্রথম একটি সূত্রের সন্ধান পান। ইসমাইল আল ইথাবি নামের বাগদাদির এক সহযোগিকে আটক করে তুরস্ক। পরে তারা তাকে হস্তান্তর করে ইরাকের কাছে। ইথাবিকে জিজ্ঞাসাবাদ করে জানা যায়, বাগদাদি অনেক সময় শাকসবজি ভরা চলন্ত মিনিবাসে বসে তার কমান্ডারদের সঙ্গে কৌশল নিয়ে আলোচনায় বসতেন। যাতে তার অবস্থান চিহ্নিত করা না যায় সে জন্য এই পন্থা নিয়েছিলেন তিনি।

এক ইরাকি কর্মকর্তা রয়টার্সকে বলেন, ‘বাগাদাদির চলাফেরা ও লুি কয়ে থাকার জন্য যেসব জায়গা সে ব্যবহার করে সে ব্যাপারে খন্ড খন্ড কিছু তথ্য ছিল। কিন্তু বাকি তথ্যগুলো খুঁজে পেতে সাহায্য করে ইথাবির দেয়া তথ্য। এগুলো কাজে লাগিয়ে অগ্রসর হন তারা। তিনি আরো বলেন, ‘ইথাবি তার নিজের কথাসহ মোট পাঁচ জন লোকের বিস্তারিত তথ্য আমাদের জানায়, এরা সবাই বাগদাদির সঙ্গে সিরিয়া ও বিভিন্ন স্থানে বৈঠক করেছিল।
ইসলামিক সায়েন্সে পিএইচডিধারী ইথাবি ২০০৬ সালে আল কায়দায় যোগ দেন। ২০০৮ সালে মার্কিন বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হয়ে চার বছর জেলে কাটান। পরে বাগদাদি ইথাবিকে ধর্মীয় নির্দেশনা ও আইএসের কমান্ডার বেছে নেওয়ার মতো গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব দেয়। ২০১৭ সালে আইএস ব্যাপক বিপর্যয়ের শিকার হলে ইথাবি তার সিরীয় স্ত্রীকে নিয়ে ইরাক থেকে সিরিয়ায় চলে যান।

চলতি বছরের প্রথমদিকে মার্কিন, তুর্কি ও ইরাকি গোয়েন্দাদের যৌথ অভিযানে কয়েকজন জ্যেষ্ঠ আইএস নেতা ধরা পরার পর আরেকটি মোড় ঘুরানো পরিস্থিতি তৈরি হয়। এই নেতাদের মধ্যে চার জন ইরাকি ও একজন সিরিয়ান ছিলেন বলে জানিয়েছেন ইরাকি নিরাপত্তা কর্মকর্তারা।
সিরিয়ার কোথায় কোথায় তারা বাগদাদির সাথে বৈঠক করেছে সেগুলো জানতে পারে গোয়েন্দারা। ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘ওই এলাকাগুলোর ভিতরে আরও সূত্র মোতায়েনের জন্য সিআইএ-র সঙ্গে সমন্বয় করার সিদ্ধান্ত নেই আমরা। ২০১৯ সালের মাঝামাঝি আমরা ইদলিবকে শনাক্ত করি- যেখানে বাগদাদি তার পরিবার ও তিন ঘনিষ্ঠ সহযোগীকে নিয়ে অনবরত এক গ্রাম থেকে আরেক গ্রামে চলে যাচ্ছিলেন।
এই সময় সিরিয়ায় থাকা গুপ্তচররা ইদলিবের বাজারে পাগড়িতে মাথা ঢাকা এক ইরাকিকে দেখতে পায় যাকে তাকে অনসরণ করে বাগদাদি যে বাড়িতে অবস্থান করছিল তার খোজঁ পায়। এই ব্যক্তিটি ইথাবি ছিলেন বলে জানিয়েছেন ইরাকি কর্মকর্তারা।

বাগদাদির তথ্য দেয় তার সহযোগী

আইএসের প্রধান আবু বকর আল-বাগদাদিকে ধরতে কয়েক বছর ধরে চেষ্টা চলছে। অন্তত ৩৫ বার তার নিহত হওয়ার খবর দিলেও শেষ পর্যন্ত সত্য প্রমাণিত হয়নি। তবে রবিবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সংবাদ সম্মেলনে মার্কিন অভিযান এবং বাগদাদির আত্মঘাতী হওয়ার তথ্য তুলে ধরেন। ইরাকি গোয়েন্দারা জানিয়েছেন, বাগদাদি সম্পর্কে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছেন তারই সহযোগী। খবর রয়টার্সের বাগদাদির সহযোগী ছিলেন ইসমাইল আল-এথাই। গত বছরের ফেব্রুয়ারিতে ইরাকি গোয়েন্দাদের তিনি গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছিলেন। ইসমাইলকে গ্রেফতার করেছিল তুরস্ক। পরে দেশটি ইরাকের কাছে তাকে হস্তান্তর করে। ইরাকের এক
গোয়েন্দা কর্মকর্তা জানিয়েছেন, তার দেওয়া গুরুত্বপূর্ণ তথ্যই বাগদাদির চলাফেরা ও তার স্থান চিহ্নিত করতে সহায়তা করে।
তিনি জানিয়েছিলেন, বাগদাদি তার কমান্ডারদের সঙ্গে বৈঠক করতে মিনিবাস ব্যবহার করতেন। ঐ বাসে শাক-সবজি থাকত। এর ফলে তাকে চিহ্নিত করা স¤ব¢ হতো না। কর্মকর্তা বলেন, ইসমাইল বাগদাদিসহ পাঁচ জনের তথ্য দিয়েছিলেন। তারা সিরিয়া এবং ইরাকের বিভিন্ন স্থানে বৈঠক করতেন। ইরাকের গোয়েন্দারা জানিয়েছেন, ইসলামিক সায়েন্সে পিএইচডি করা ইসমাইল বাগদাদির ঘনিষ্ঠ সহযোগী ছিলেন। তার দেওয়া তথ্যই বাগদাদিকে খুঁজে পেতে সহায়তা করে।

bn_BDBengali